সিলেট জেলার তথ্য, ইতিহাস ও দর্শনীয় স্থান সমূহ

সিলেট জেলা বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের একটি জেলা। এটি দেশের উত্তর-পূর্ব অংশে অবস্থিত, এবং উত্তর ও পূর্বে ভারতের মেঘালয় ও আসাম রাজ্য এবং দক্ষিণ ও পশ্চিমে মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ এবং সুনামগঞ্জ জেলাগুলির দ্বারা সীমাবদ্ধ। জেলাটি বাংলাদেশের সবচেয়ে জনবহুল জেলা। এর রাজধানী সিলেট শহর যেটি বিভাগীয় সদর দপ্তরও বটে।

সিলেট বাংলাদেশের একটি সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক কেন্দ্র। এই জেলায় বিশ্বের বৃহত্তম সুফি মাজার হযরত শাহ জালাল (রঃ) এর মাজার সহ বেশ কয়েকটি ঐতিহাসিক ও ধর্মীয় স্থান রয়েছে। সিলেটও একটি প্রধান চা উৎপাদনকারী এবং এর সুন্দর প্রাকৃতিক দৃশ্যের জন্য পরিচিত।

Sylhet-District

সিলেট নামকরণ ও জেলার ইতিহাস

সিলেট জেলার নামকরণের ইতিহাস দীর্ঘ ও জটিল। জেলাটি বহু শতাব্দী ধরে বিভিন্ন নামে পরিচিত, প্রত্যেকটি বিভিন্ন সংস্কৃতি এবং শাসকদের প্রতিফলন করে যারা এটিকে নিয়ন্ত্রণ করেছে। জেলার প্রাচীনতম পরিচিত নাম ছিল শ্রীহট্ট যার অর্থ সংস্কৃতে "সুন্দর বাজার"। এই নামটি হরিকেল এবং কামরূপের বৌদ্ধ এবং হিন্দু রাজ্যগুলি দ্বারা ব্যবহৃত হয়েছিল, যারা ৭ম থেকে ১২ শতক পর্যন্ত অঞ্চলটি শাসন করেছিল।

১৩ শতকে জেলাটি বাংলার মুসলিম সালতানাতের নিয়ন্ত্রণে আসে। সুলতানরা সিলেট জেলার নতুন নামকরণ করেন, যেটি সংস্কৃত শব্দ "শিলহট্ট" থেকে উদ্ভূত বলে মনে করা হয়, যার অর্থ "পাথরের বাজার"।

১৬ শতকে জেলাটি মুঘল সাম্রাজ্যের দ্বারা বিজিত হয়েছিল। মুঘলরা ২০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে সিলেট শাসন করেছিল, সেই সময়ে জেলাটি একটি বড় অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নের সময়কাল অনুভব করেছিল।

১৮ শতকে জেলাটি ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির নিয়ন্ত্রণে আসে। ব্রিটিশরা ১০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে সিলেট শাসন করেছিল সেই সময়ে জেলাটি ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক ব্যবস্থার সাথে একীভূত হয়েছিল।

১৯৪৭ সালে সিলেটকে ধর্মীয় ভিত্তিতে বিভক্ত করা হয়, মুসলিম-সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ পাকিস্তানের অংশ এবং হিন্দু-সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ ভারতের অংশ হয়ে ওঠে। তখন থেকেই জেলাটি বিভক্ত।

বর্তমানে সিলেট বাংলাদেশের একটি সমৃদ্ধ শহর এবং বাণিজ্যিক কেন্দ্র। এটি মুসলমান, হিন্দু, বৌদ্ধ এবং খ্রিস্টানদের একটি বৈচিত্র্যময় জনসংখ্যার আবাসস্থল। জেলাটি তার সুন্দর দৃশ্যাবলী, এর সমৃদ্ধ সংস্কৃতি এবং এর সুস্বাদু খাবারের জন্য পরিচিত।

সিলেট জেলার উপজেলা/থানা সমূহ

সিলেট জেলায় ১৩টি থানা/উপজেলা রয়েছে:

  1. বালাগঞ্জ উপজেলা,
  2. বিয়ানীবাজার উপজেলা,
  3. বিশ্বনাথ উপজেলা,
  4. কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা,
  5. ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা,
  6. গোলাপগঞ্জ উপজেলা,
  7. গোয়াইনঘাট উপজেলা,
  8. জৈন্তাপুর উপজেলা,
  9. কানাইঘাট উপজেলা,
  10. সিলেট সদর উপজেলা,
  11. জকিগঞ্জ উপজেলা,
  12. দক্ষিণ সুরমা উপজেলা,
  13. ওসমানী উপজেলা।

সিলেট জেলার দর্শনীয় স্থান সমূহ

এখানে সিলেট জেলার সবচেয়ে জনপ্রিয় কিছু পর্যটন স্থান আছে:

রাতারগুল সোয়াম্প ফরেস্ট

এটি সিলেট জেলার জৈন্তিয়াপুর উপজেলায় অবস্থিত একটি প্রাকৃতিক জলাভূমি। এটি বিপন্ন গঙ্গার ডলফিন সহ বিভিন্ন উদ্ভিদ এবং প্রাণীর আবাসস্থল। দর্শনার্থীরা নৌকায় বা পায়ে হেঁটে বনটি ঘুরে দেখতে পারেন।

বিছনাকান্দি

এটি সিলেট বিভাগের মৌলভীবাজার জেলায় অবস্থিত একটি পার্বত্য কেন্দ্র। এটি তার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের নৈকট্যের জন্য পরিচিত। দর্শনার্থীরা এই অঞ্চলে হাইকিং, ক্যাম্পিং এবং মাছ ধরা উপভোগ করতে পারেন।

জাফলং

এটি বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তে অবস্থিত একটি ছোট শহর। এটি তার ভাসমান বাজারগুলির জন্য পরিচিত, যেখানে দর্শনার্থীরা স্থানীয় বিক্রেতাদের কাছ থেকে বিভিন্ন পণ্য কিনতে পারে। দর্শনার্থীরা নদীতে নৌকা ভ্রমণের জন্যও যেতে পারেন এবং এলাকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেন।

শাহজালাল দরগা

এটি সিলেট শহরে অবস্থিত একটি মুসলিম মাজার। এটি হজরত শাহ জালাল (রহ.), একজন সুফি সাধকের সমাধি, যিনি এই অঞ্চলে ইসলাম নিয়ে এসেছিলেন বলে কথিত আছে। মাজারটি সারা বিশ্বের মুসলমানদের জন্য একটি জনপ্রিয় তীর্থস্থান।

সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান

এটি সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জ জেলায় অবস্থিত একটি জাতীয় উদ্যান। এটি হাতি, বাঘ এবং হরিণ সহ বিভিন্ন ধরণের বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল। দর্শনার্থীরা তাদের প্রাকৃতিক আবাসস্থলে প্রাণী দেখতে পার্কে সাফারি করতে যেতে পারেন।

মাধবপুর মসজিদ

মাধবপুর মসজিদ ষোড়শ শতাব্দীর একটি মসজিদ যা বাংলাদেশের প্রাচীনতম মসজিদগুলির মধ্যে একটি। মসজিদটি তার জটিল স্থাপত্য এবং সুন্দর টালির কাজের জন্য পরিচিত।

সিলেট জেলার অনেক পর্যটন স্থানের মধ্যে এগুলি কয়েকটি মাত্র। দেখার মতো আরও অনেক জায়গা রয়েছে, প্রতিটির নিজস্ব অনন্য আকর্ষণ রয়েছে।

সিলেট জেলার পাবলিক পার্ক সমূহ

এখানে সিলেট জেলার কয়েকটি পাবলিক পার্ক রয়েছে:

বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক পার্ক

এটি সিলেট শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত, এটি মানুষের কাছে বিশ্রাম নেওয়ার এবং বাইরে উপভোগ করার জন্য একটি জনপ্রিয় স্থান। পার্কটিতে একটি বড় পুকুর, একটি খেলার মাঠ এবং বিভিন্ন ধরনের গাছ ও ফুল রয়েছে।

লালবাগ কেল্লা উদ্যান

লালবাগ কেল্লা উদ্যান সিলেট শহরে অবস্থিত একটি ঐতিহাসিক উদ্যান। পার্কটি ১৭ শতকে মুঘলদের দ্বারা নির্মিত হয়েছিল। পার্কটিতে রয়েছে একটি বড় মসজিদ, অনেকগুলি সমাধি এবং বিভিন্ন ধরনের গাছ ও ফুল।

জলিলপুর বোটানিক্যাল গার্ডেন

জলিলপুর বোটানিক্যাল গার্ডেন সিলেট শহরের উপকণ্ঠে অবস্থিত। বাগানে সারা বিশ্ব থেকে গাছপালা এবং ফুলের একটি বিশাল সংগ্রহ রয়েছে। বাগানটি বানর, হরিণ এবং ময়ূর সহ বেশ কয়েকটি প্রাণীর আবাসস্থল।

মাধবপুর লেক পার্ক

মাধবপুর লেক পার্ক সিলেট জেলার মাধবপুর উপজেলায় অবস্থিত। পার্কটি মানুষের জন্য বিশ্রাম নেওয়ার এবং বাইরে উপভোগ করার জন্য একটি জনপ্রিয় স্থান। পার্কটিতে একটি বড় লেক, একটি খেলার মাঠ এবং বিভিন্ন ধরনের গাছ ও ফুল রয়েছে।

জিয়া উদ্যান

জিয়া উদ্যান সিলেট জেলার জিয়ানগর উপজেলায় অবস্থিত। বাগানগুলি লোকেদের বিশ্রাম এবং বাইরে উপভোগ করার জন্য একটি জনপ্রিয় জায়গা। বাগানে রয়েছে একটি বড় পুকুর, একটি খেলার মাঠ এবং বিভিন্ন ধরনের গাছ ও ফুল।

খাদিমনগর জাতীয় উদ্যান

খাদিমনগর জাতীয় উদ্যান হল একটি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য যেখানে বাঘ, হাতি এবং হরিণ সহ বিভিন্ন প্রাণীর বাসস্থান।

যে কারনে সিলেট জেলা বিখ্যাত

সিলেটের জন্য বিখ্যাত কিছু জিনিস এখানে দেওয়া হল:

  • চা বাগান: সিলেট বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম চা উৎপাদনকারী অঞ্চল। সিলেটের চা বাগানগুলো দেশের সবচেয়ে বেশি ফলন জোগান দেয়।
  • প্রাকৃতিক সৌন্দর্য: সিলেট তার অত্যাশ্চর্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য পরিচিত। এই অঞ্চলে পাহাড়, পাহাড়, উপত্যকা, বন এবং নদী।
  • সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য: সিলেটের রয়েছে সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য। এই অঞ্চলে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর বসবাস।
  • ল্যান্ডমার্ক: সিলেটে শাহ জালাল দরগাহ, মাধবপুর মসজিদ এবং রাতারগুল সোয়াম্প ফরেস্টের মতো বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ল্যান্ডমার্ক রয়েছে।
  • পর্যটন গন্তব্য: সিলেট একটি জনপ্রিয় পর্যটন গন্তব্য এবং এটি তার বন্ধুত্বপূর্ণ মানুষ, সুস্বাদু খাবার এবং প্রাণবন্ত সংস্কৃতির জন্য পরিচিত।

সিলেট একটি সুন্দর এবং মনোমুগ্ধকর অঞ্চল যা দেখার মতো। আপনি যদি বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, এই অঞ্চলের সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং সিলেটের বন্ধুত্বপূর্ণ মানুষদের অভিজ্ঞতা লাভ করার জায়গা খুঁজছেন, তাহলে সিলেট আপনার জন্য উপযুক্ত গন্তব্য।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Oops!
সম্ভবত আপনার ইন্টারনেট সংযোগে ত্রুটি হয়েছে!!